মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C

শুভ্র নীলা

বান্দরবান শহরের  খুব কাছেই সমুদ্র পৃষ্ঠ হতে ২০০০ ফুট উচুঁ পাহাড় চুড়ায় অবস্থিত নীলাচল পর্যটন স্পটের পাশেই  ‘‘শুভ্রনীলা’’ এ পর্যটন স্পটটিও বান্দরবানের পর্যটন শিল্পে যোগ করেছে ভিন্ন মাত্রা। ‘‘শুভ্রনীলা’’ থেকে আকাশ ছোঁয়া না গেলেও মনে হবে আকাশ হাতছানি দিয়ে ডাকছে। মেঘের রাজ্যে হারিয়ে যাবার স্বপ্ন যদি কারো থাকে তাহলে স্বপ্ন পূরণ হবে ‘‘ নীলাচল’’ গেলে। বর্ষায় সেখানে চলে রোদ আর মেঘের লুকোচুরি খেলা। শীতল পরশ বুলিয়ে শুভ্র মেঘ মুছে দেবে জীবনের ক্লামিত্ম। ‘‘শুভ্রনীলা’’ থেকে  অনায়াসেই চোখে পড়বে বান্দরবান শহর। চার পাশে দেখাযাবে সারি সারি সবুজঘেরা পর্বতমালা। এখান থেকে ‘‘ চিম্বুক’’ পাহাড়ও দেখা যায়। আর রাতে দেখা যায়  ‘‘ বন্দর নগরী চট্টগ্রমের ’’ রহস্য আলো আঁধারির খেলা।  শহর থেকে পাহাড়ি সর্পিল আকাঁবাকাঁ পথে এর দুরত্ব ৫ কিলোমিটার। নীলাচলের কোল ঘেঁষেই রয়েছে তঞ্চগ্যা, মারমা ও ত্রিপুরা উপজাতিদের বসবাস। বান্দরবান জেলা পরিষদ কর্তৃক নির্মিত  শুভ্রনীলায় রয়েছে  রেস্টুরেন্ট।

কিভাবে যাওয়া যায়:

বান্দরবান শহর থেকে চান্দের গাড়ী, প্রাইভেট কার, বেবি টেক্সি যোগে শুভ্রনীলা যাওয়া আসা করা যায়।